পরিণতি

লেখক: প্রান্তিক

আমি স্পর্শ। একজন সমকামী পুরুষ । আমি কোলকাতা তে পড়ছি। আমার বাবা একটা নামকরা আন্তর্জাতিক সংস্থার কনসালটেন্ট আর মা একটা ভার্সিটির টিচার । একটা ভাইও আছে আমার । কিন্তু তার সাথে আমার সম্পর্ক খুব একটা ভালো না । আমি ছাত্র হিসেবে ভালোই । তবে বাবা মার সাথেও কোথায় যেন একটা দূরত্ব চলে এসেছে । ছোট থেকেই আমি একা । তেমন কোন বন্ধু নেই । স্কুল ও কলেজেও আমার কোন বন্ধু ছিল না । ভার্সিটিতে পড়ার সময় আমার প্রথম বন্ধু হল সাদ । ও আর আমি একই ডিপার্টমেন্টে পড়ি । ওর গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড কিছুই নেই । ধীরে ধীরে আমাদের দুজনের মাঝে বুঝা পড়ার মাত্রাটা বাড়তে লাগল । খুব ভালো ছিল দিনগুলো । জীবনে প্রথম বন্ধু পেলাম তো তাই ! ওর আর আমার মাঝে অনেক তফাৎ । আমি শর্টস পরি আর ও ফুল প্যান্ট পরে । আমি অতি আধুনিক পরিবারের ছেলে আর ও গোঁড়া ধর্মীয় পরিবারের ছেলে । আমি হাতে ব্রেসলেট পরি আর ও পরে ঘড়ি । আরও কত কি তফাৎ আমাদের মাঝে । অথচ দুজন প্রানের বন্ধু । কিন্তু ওর কথা বার্তা চিন্তা ভাবনা দেখে আমার ভালো লাগল । বেস্ট ফ্রেন্ড হলাম এতো ডিফারেন্স থাকার পরেও । ভালোই চলছিল সবকিছু । খুব ভরসা করতাম ওকে । ও ও ভরসা করত আমায় । একদিনের কথা । ওকে মন খুলে বললাম যে আমি সমকামী । খুব অবাক করে দিয়ে ও সবকিছু সহজ ভাবে আমাকে মেনে নিল । কিন্তু ও আমার সমকামিতাকে মেনে নিতে পারল না । ও চাইল আমি সমকামী জীবন থেকে ফিরে আসি । এরপর একদিন কি মনে করে ও আমার কপালে একটা চুমু দিল । আমি খানিকটা অবাকই হলাম । ও আমার দিকে তাকিয়ে বলল,এটা ভালবেসে দিলাম । এরপর মাঝে মাঝে আমিও ওর হাতে চুমু খেতাম । ও আমার কপালে আর ঘাড়েও চুমু খেত । আমরা দিনের অনেক সময় একসাথে থাকতাম । সারাদিন খাওয়া, ক্লাস, ঘোরাঘুরি আরও কত কি ! একদিনের কথা । আমি আমার রুমে শুয়ে আছি । ল্যাপটপ এ গান শুনছি মনোযোগ দিয়ে । আর ও একটা মেয়ের সাথে চ্যাট এ বিজি । আচমকা কি মনে করে ও বলল, তুই খুব জেলাস আমার প্রতি তাই না ? কেন ? আমি অবাক হলাম ওর কথায় । এই যে মেয়ের সাথে চ্যাট করছি । আমি কিছুই বুঝলাম না । আরেকদিন সে বলল, তোর কারনে সবার কাছ থেকে আমি নিজেকে গুটিয়ে নিচ্ছি । রাতে রুমে আসার পর যদি মাঝে মাঝে খোঁজ খবর নেয়ার জন্য ওকে ফোন দিতাম ও খুব বিরক্ত হত । আরও অনেক কিছু নিয়ে দিনকে দিন ঝামেলা বাড়তেই থাকল । আমি অনেক চেষ্টা করতাম সবকিছু সহজভাবে নেয়ার জন্য । কিন্তু ও আমাকে খুব কড়া ভাষায় কথা শুনাতে শুরু করল । মাঝে মাঝে তাই প্রচুর কান্না পেত রাতে । এখন অবরোধের জন্য ভার্সিটি বন্ধ । আমরা এখন যার যার বাসায় । এই কটা দিন একটা বারের জন্যও ও আমাকে ফোন দিয়ে খবর নেয় নি । অথচ সে ফেসবুকে ঠিকই বসে । অনেক স্ট্যাটাস দেয় । সারাক্ষন চ্যাট করে । কিন্তু আমার কোন মেসেজের উত্তর দেয় না । খুব কষ্ট পাই । গত দুইদিন আগে ওকে ফোন করে বললাম, দোস্ত , তোকে আমি খুব ভালোবাসি । তুই আমার প্রথম পাওয়া বেস্ট ফ্রেন্ড । যদি কোন ভুল হয়, যদি কোন দোষ করি প্লিজ বলে ফেল । এভাবে ইগনোর করিস না আমায় । ও আমাকে বলল, আমি জানতাম, তোরা সমকামীরা সবাই এমন । এই রকমটাই হবে আমি জানতাম । শুনে রাখ, আমায় নিয়ে যদি কোন গে টাইপ চিন্তা করিস তাহলে আমি চলে যাব । আমি সমকামিতাকে ঘৃণা করি । আমি এসব পারব না । আমি ওর সব কথা শুনে অবাক ! আমি তো ওকে সমকামি হিসেবে ভালবাসিনি । আমি তো ওকে বন্ধুর মত ভালোবাসি । ও আমার জীবনের প্রথম বেস্ট বন্ধু । সারা ক্যাম্পাসে ও আমার একমাত্র ভালো সাথী । আমরা ভালো বন্ধু । ও আমার জীবন সাথী না । আমাদের মাঝে কোন কথা হচ্ছে না এখ্ন । কোন যোগাযোগ নেই । ও আমাকে সরাসরি বলে দিয়েছে যদি সমকামিতা বাদ দিতে পারিস তবে আমার সাথে বন্ধুত্ব রাখবি । আজ সবার কাছে আমার প্রশ্ন , আমি কি করব ? একদিকে আমার সবচাইতে ভালো বন্ধু আমার ঘৃণা করে । আমায় নোংরা কীট মনে করে । অন্যদিকে সমকামিতা আমার জীবনের একটা অংশ । কোনটাকে বাদ দেব ? আমার এখন কিছুই ভালো লাগে না । মাঝে মাঝে মনে হয় মরে যাই । কিন্তু পারি না । এটাই কি প্রত্যেকটা সমকামীদের শেষ পরিণতি !

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.