জরাজীর্ণ আশা

লেখক-***

আমি সেই পথের কিনারে ভিখারীর মত দাঁড়িয়েই থাকি,

সকাল যায়,সন্ধ্যা যায়-

কেউ বলে না ‘ঘরে চলো বেলা হলো’।’

কেউই এদিকে চোখ তুলে তাকায় না

উস্কোখুশকো চুলে দাঁড়িয়ে থাকা মানুষটার অপেক্ষা কাউকে ভাবায় না।

কড়া রোদ,ঝড়ো বৃষ্টি কিছুতেই আর আমার শরীর কেঁপে উঠে না।

ব্যথার কম্পনে যে শরীর অভ্যস্ত সে শরীরে পার্থিব ব্যথা তুচ্ছ।

জগতের কোন কিছুই যেন আমাকে আর ঘাটায় না,

নয় কোন অপ্রাপ্তি,নয় কোন বিষাদ-

কাঠ-পাথরের গড়া মানুষ গুলোর মত তারাও সস্তা পোশাক পড়া মানুষটাকে অবজ্ঞা ছাড়া কিছুই দেয় না।

এত কোলাহলের মাঝেও নিজেকে একা লাগার কারণ খুঁজি না আমি,

আমি খুঁজি কেউ একজন আমার পাশে এসে দাঁড়াক, বলুক- ‘আমি আছি।’

এতসব অপূর্ণতা আর অপ্রাপ্তির পরেও দুর্বল শরীর আর

জরাজীর্ণ আশা নিয়ে আমি দাঁড়িয়ে থাকি-

কেউ আসবে এই পথের কিনারে

আমার হাত টেনে ধরে বলবে-

‘ফিরে চলো,আকাশ কালো হয়ে এসেছে।’

সমপ্রেমের গল্প ফেসবুক পেজ থেকে সংগৃহীত

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.