স্তম্ভন

কবিঃ-পৃত্থুজ আহমেদ

উৎসর্গঃ-ফুয়াদ হাসান ফাহিম

শরীরের প্রতিটি কোণায়,আনাচে-কানাচে জেগে ওঠা ঘর্মগ্রন্থির নিঃসৃত তরলে,

যে মাদকতা আছে-

তা কী আদৌ মিলবে?

তামাক,চুরুট,সিগারেট কিংবা

কয়েক পয়সার নেশাদ্রব্যে!

যে ওষ্ঠাধর জোড়া খোঁজ পেয়েছে তোমার পোড়া ঠোঁটের দিশা

তার কী জাগবে কখনও অমৃতের আশা?

যার জিহ্বায় লেগেছে তোমার নোনতা লালার স্বাদ,

তাকে কী করে গ্রাস করবে জগতের সকল বিষাদ!

হ্যাঁ!এই নেশায় তুমি,তুমিতেই সকল নেশা।

এই তুমি নামক মাদকতায় নেই আঁধারের ছোঁয়া,

তুমি নামক নেশায় নেই হৃদরোগের সংশয়।

অথচ দেখো,

সবাই আমাকে নেশাখোর বলে

আমি নাকি মাদকাসক্ত।

আফসোস!

তারা তো জানেনা,

আমি তোমার নেশায় নিমজ্জিত

তোমার ঘর্মঘ্রাণে জীবনীশক্তি পেয়ে আমি আজও বেঁচে আছি।

হৃৎস্পন্দন গতিশীল এখনও তোমার লালারসের অমৃত গুণাগুণে।

তারা জানেনা,

যারা আমাকে নেশাখোর বলে।

এই নেশায় জীবন আছে,

সহস্রাধিক মৃত্যুতেও এই নেশা থেকে যায়।

ফিরে আসে বারংবার,

কখনও জন্ম,

কখনও বা জন্মান্তর হয়ে।

সমপ্রেমের গল্প

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.