বিধ্বস্ত কাব্য

রাহাত ইসলাম জুবায়ের

বিধ্বস্ত দেশ ঝড়ে অশান্ত,
সবার মনে শংকা।

উনুনের পারে উদাস রমনী,
হাতে শুকনো লংকা।

পুরুষের হাত রঞ্জিত হবে আজ তলোয়ার লও সব,
বাজছে কথিত জিহাদের ঢংকা।

লাশ চাই লাশ, মানুষের লাশ,
নাস্তিক -দিবাকর ।

প্রাণ ঝরে ঝরুক তাতে কী?
কুপিয়ে মুণ্ডু ছিন্ন কর ধর।

খুনের নেশায় জেগে থাক নিশি,
নির্ঘুম- নিশাচর।

ঐ তলোয়ারে যাচ্ছে কত নিরপরাধের
প্রাণ,
মনুষ্যত্ব বিসর্জন দিয়েছি ভুলে গেছি এই সন্তান মোর মার।

মূর্খ ব্যক্তির ধর্ম চর্চা,
বাড়াচ্ছে প্রাণের ক্ষয়।

স্বাধীন দেশে হিন্দু- সংখ্যালঘু কেন নির্যাতিত পড়ে রয়?

চাপাতির জোরে ধর্ম দেখিয়ে,
বোঝায় ইসলাম কারে কয়?

অপব্যাখ্যায় স্বর্গ পেলে,
ধর্ম পাপির জয়।

ধর্মের কল হাওয়ায় নড়ে,
সেই কথা তো সোজা।

জবাব দে তুই ধর্মপাপি,
মায়ের আঁচল কেন ভেজা?

শান্তির ধর্ম ইসলামের তুই,
করেছিস অপব্যবহার ।

সালাম নয়,থুথু আর ঘৃণা,
দেই তোকে ধিক্কার।

হোক মুসলিম হোক হিন্দু হোক বৌদ্ধ,
হোক না সে খ্রিস্টান,
চারটি কন্ঠে বাজছে অবিরাম মানবতার জয়গান ।

রক্ত দিয়েছি ত্রিশ লাখের,
লাগবে কত আর?

স্বাধীন বাংলা জবাব চাই,
দিবি কবে অধিকার ?

মৈত্র – সম্প্রীতিতে ই কল্যাণ হবে,
বলে যাই বিনয়ী শিরে।

আমার কথা সত্য হলে,
লিখে রেখো ইতিহাসে।

আততায়ীর গুলি লাগবে জানি,
আমার ছোট্ট বুকের মাঝে ।

কথা দিয়ে যাই ফিরব,
বিজয়ীর বেশে তোমাদের “জনস্রোতে”।

ধর্মের পরিচয় মনুষ্যত্বে হোক,
ভালো থাকুক আমাদের এই দেশ,
ভালো থাকুক দেশের মানুষ গুলো। 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.