কে ছায়া তুমি ?

মেঘ রাজ সাইমুন

ঊষসী ভোরে বিছানায় অাড়মোড়া স্বভাবে-
হঠাৎ ঠোঁটে শিউলি ফুলের ছোঁয়া পায়। ঘুম ভাঙ্গা চোখে তাকিয়ে দেখি-
বুকের উপর লেপ্টে আছো তুমি।
মায়া ভরা দৃষ্টিতে চেয়ে মিষ্টি হেসে বল, লাল কফি মগ তোমার অপেক্ষায়!
আমি অবাক দেখে তুমি দুষ্টুমি করে-
গরম কফিতে আমার আঙ্গুল দাও ডুবিয়ে।

আমি অজানা ব্যথায় ‘উহ’ বলে মাথা চুলকায়।
উদাস দুপুরে ক্লান্তি পায়ে;
এই অচেনা শহরে যখন ধূলা পথে হাটি- হঠাৎ তোমার স্পর্শ পাই এই হাতে! একাকিত্ব হারায়-দুরন্ত বাতাসে যেন কলমি লতার গান।
দেখিয়ে বলো বকুল শাখায়-
কোন বউ কথা কও পাখি;
ওর মাঝে পাবে অামায় আজীবন-আনমনে মেলে আঁখি।

দুরন্ত বিকালে যখন একলা পারাপারে- হালকা হাওয়ায় উড়ে আমার কপাল জোড়া চুল এসে তুমি জড়িয়ে গলা মিষ্টি করে- নরম ঠোঁটের আলতো ফুঁয়ে-
যেন গুছিয়ে দাও এলোমেলো ভুল। দেখিয়ে উড়ন্ত শুভ্র বলাকা- আমায় দাও ঘরে ফেরার পথ আঁকিয়ে!
কুয়াশা ঘেরা শীতে দুষ্টু কাঁপুনিতে- গোধূলি রাঙা আকাশে স্বপ্ন সাজাতে।

একলা কোন জ্যোৎস্না ভরা রাতে-
হঠাৎ তুমি বসে আমার পাশে।
ভ্রমর নয়নে দেখিয়ে নীল ধ্রুবতারা! তোমায় আমি খুঁজি যেন-
ঘাসফুলে শিশির ফোঁটার ছলছল আঁখিতে-ঐ তিলোত্তমা তারায়। জোনাকির মিটিমিটি অালোয়- দুঃস্বপ্নে হয়তো কৃষ্ণগহ্বরের ফাঁদে!
কিংবা পূর্ণতা প্রাপ্তি হলুদ রংয়ের চাঁদে।

অসীম দুরে থেকেও আজ-
আমার নিসঙ্গতা,একাকিত্ব ঘুচিয়ে- প্রেমিকময় বন্ধু পেয়েছি কল্পনায় এই আমি।
কে ছায়া তুমি? 

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.