সিঁদুরের আবেদন (প্রথম কবিতা)

কবিঃ মৃত্তিকা রাই

ভেজা আকাশ, মৃদু উষ্ণতায়।
তোমার আবেশ, হিমেল হাওয়ায়।
যেনো মেঘ হয়ে নেমে আসে, রংধনু রুপের সাতটি রং।
মনের কোণে কথা গুলো, আজ সেজেছে ভীষণ সঙ।

দূর আকাশের তারা গুলো, দলবেঁধে থাকে।
আমি চেয়ে রই, অপালক নির্বাকে।
এক অপরুপ ঝলকানি, অনন্য মোহ মায়ার মেলায়।
আমি পাশে রইতে চাই প্রিয়, খুব করে নিশি রাতের বেলায়।

যতই তৃষ্ণার্ত হই, আরো দেখি তোমায়, স্নিগ্ধ ভোরে।
মুখিয়ে আছি, একটু তৃপ্তি দাও আমায়, আদর করে।
হেঁটে চলেছি এঁকে বেঁকে, মনভোলা অবোলা অর্বাচীনের মতো।
লাগুক নষ্টামীর দাগ আমার, বেয়ে পড়া লাল রক্ত মাখা ক্ষত।

আমার শরীরের প্রতিটি ভাঁজে, প্রতিটি হৃদ স্পন্দনে,
থমকে গিয়েছিল কিছু শূন্য বায়ুস্পোর।
সেদিন ছিলাম আনমনে, বাতাসে করা নারছিলো,
আলগা চুলে ঝাপটে দেয় কিছু বৃষ্টি অনু ফোঁর।

সন্ধ্যা নামতেই দেখেছিলাম, টগবগে রক্ত লাল সিঁদুর,
সূর্যোটাকে ঘিরে রেখেছে কি অপূর্ব মায়া।
কেড়ে নিল সব অরুপ রাত্রি, নেমে আসা ঢেকে আসা, সোনালী বাদামি আস্তরে মেখে দিয়ে ধূপ ছায়া।

রোদ পোড়া তোমার ঘামের গন্ধ হতে চাই।
সুখে দুঃখে তোমার শরীরে মিশে থাকতে চাই।
নাকে মুখে কপালে ঠোঁটে স্বপ্ন আঁকতে চাই।
দুমুঠোয় তোমার হাজার শ্রমের মূল্য হতে চাই।
প্রিয়! তুমি আমায় ভালবেসো।
গভীর নিশিথে, গোপন তিথিতে কাছে এসো।

তোমার ইচ্ছের আঙ্গুলে মাখিয়ে নাও,
এক চিমটি লাল সিঁদুর।
সাথে হৃদয়ে ক্ষরণ হতে থাকা,
আমার একফোঁটা লাল রক্ত।

সিঁথিতে পরিয়ে দাও তুমি যুবরাজ।
আজ আমি সেজেছি আপন সাজ।
নিজেকে সপে দিলাম তোমার অস্তিত্বে।
তুমি শুধু আপন করে নাও রিক্তহস্তে।

০৬/১২/২০১৯ ইংরেজি।

[লেখক মৃত্তিকা রাই সম্পর্কে কিছু কথা- উনি একজন ট্রান্সজেন্ডার, ট্রান্স উইমেন, রূপান্তরকামী নারী। উনি পুরুষ দেহে জন্মালেও, উনার মানসিক লিঙ্গ নারী।]

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.