অ-শরীরী প্র্রেম

লিখেছেনঃ গ্রিফিন

শরীরী প্রেমের ভিঁড়ে অ-শরীরী প্রেম জাদুঘরে প্রায় আজকাল! কিন্তু আমার প্রেমগুলো হয় অ-শরীরী!  সবাই যেখানে চেহারা দেখে প্রেমে পরেন, আমি সেখানে কারো বুদ্ধিমত্তা দেখে প্রেমে পরি! কারো স্বরে, শব্দ চয়নে অর্থাৎ চমৎকার কথা বলার ধরনে প্রেমে পরি, বুদ্ধিবৃত্তিক আলোচনার প্রেমে পরি, কারো জ্ঞানের প্রেমে পরি! এবারো ব্যতিক্রম হলোনা! বছর কয়েক আগে একজন এসেছিল জীবনে যে এলোমেলো করে দিয়েছিল আমার ভেতর, আমার বাহির! কিন্তু পোড়া কপালে সুখ সইলোনা, হারিয়ে ফেললাম তাকে! ক্ষতটা এখনো শুকোয়নি! কারন মানুষ হারালে মানুষের ক্ষত পূরণ হয় না! এতবছর পরে এলে নতুন “তুমি!” পৃথিবীর একদিকে তুমি আর অন্যদিকে আমি! আমার এখানে চাঁদ তখন তোমার ওখানে সূর্য! অথচ আমি এতটা দূরত্ব অনুভব করি না জানোতো! তোমাকে বলতে চাই, ‘ পথ চেয়ে রই দেরি করোনা যতই,আর ভোলা যাবে না কখনোই, তোমাকে! তুমি হাসলে আমার ঠোঁটে হাসি, তুমি আসলে জোনাকি রাশি রাশি!’

 তুমি যখন বলো, তুমি অনেক নেগেটিভ ভাইব ক্যারি করো তখন ভীষণ বলতে ইচ্ছে করে ‘আমি এতটা পজিটিভ যে তোমার নেগেটিভিটি শুষে নিতে সক্ষম ‘! কিন্তু বলা হয়ে উঠে না! তুমি যা যা করতে চাও তা করতে পারবে আমি বিশ্বাস করি, কারন পরিশ্রমী মানুষ ঠিকই সফল হয়! আর সেল্ফ রেস্পেক্ট ধরে রাখা মানুষগুলো সবকিছু পারে! সবকিছু!!! বিশ্বাস করি, জীবন তোমাকে আফসুসের সুযোগ দেবেনা হয়ত আর! তোমাকে খুব বেশী বলতে ইচ্ছে করে, ‘আমি আছি, তোমার পথের বাঁকে’! অথচ বলতে পারিনা! তুমি আমার পছন্দের ডেজারটের মত, যত খাই মন ভরে না তেমনি যত কথা বলি মন ভরে না! জানো, তুমি ঘুমোলে মাঝেমাঝে আমার ভীষণ রাগ হতে থাকে! মনে হয় ঘুম ভাঙিয়ে গল্প করি! অনেক অনেক গল্প! সেই তো এলে কিন্তু বড্ড দেরিতে আর অসময়ে এলে! তোমার এতটুকু অবহেলা নিতে পারিনা আমি! বলতে ইচ্ছে করে,”আমি কি তোমায় খুব বিরক্ত করছি বলে দিতে পারো তা আমায়, হয়তোবা এখন আর প্রয়োজন নেই তবু লেগে থাকি একটা কোনায়! বলে দিতে পারো তা আমায়, চিঠি লিখব না ওই ঠিকানায়! আমারও তো মন ভাঙে, চোখে জল আসে আর অভিমান আমারো তো হয়!” তুমি বলো, “সবাই চলে যায় তাই তুমিও থাকবেনা! ” আমি খুব করে বলতে চাই, আমাকে ধরে রেখ, আমি থাকব! জানি, আমি তোমার যোগ্য নই! বস্তুগত কিংবা অবস্তুগত কোনোভাবেই নই! নিতান্ত ছাপোষা মানুষ আমি! 

জানো তো, সবাই হ্যাপি এন্ডিং চায়! কিন্তু এ জন্মে আমি তোমার প্রেমিকা হতে চাই না! কারন, প্রেমিকা হয়ে চাল, ডাল, নুন, তেলের হিসেব আর রান্না, বাসন মাজার ঝগড়ায় সময় খোয়াতে  চাইনা! আমার এই অ-শরীরী প্রেমে শরীরী উষ্মতা মাখাতে চাই না! জন্মান্তর যদি সত্য হয় তবে পরের জন্মে নিশ্চিত তোমার প্রেমিকা হয়ে জন্মাব আমি, আর জন্মান্তর যদি মিথ্যে হয় তবে এ জন্মে তোমাকে সংসারের ঘাটে ফেলে হারানোর বাজি ধরতে চাই না! বরং তোমাকে চাই সারাটা জীবন কথা বলার মানুষ হিসেবে! যার সাথে আমার ভারী ভারী বিষয় নিয়ে ভীষণ ভীষণ তর্ক হবে! গল্পের মেলা বসাবো আমরা! অকারণে গাল ফুলোব, ঝগড়া বাঁধাবো! আমি এটা উপভোগ করতে চাই! তোমাকে হারানোটা আমি এফোরড করতে পারব না! কারন ‘দাঁড়িয়ে আছ তুমি আমার গানের ওপারে! আমার সুরগুলি পায় চরণ, আমি পাই নে তোমারে’!

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.